Home » Computer Tricks » জেনে নিন কম্পিউটারের সাধারণ কিছু সমস্যা এবং তার প্রতিকার!! [ট্রাবলশুটিং পর্ব-২]

জেনে নিন কম্পিউটারের সাধারণ কিছু সমস্যা এবং তার প্রতিকার!! [ট্রাবলশুটিং পর্ব-২]

Guest
Total Post 16


এই পোস্টটির আগের পর্বে মাত্র ৫টি সমস্যা এবং তাদের সমাধান নিয়ে আলোচনা করেছিলাম। যারা আগের পর্ব দেখেননি তারা দেখুন।
জেনে নিন কম্পিউটারের সাধারণ সমস্যা এবং তাদের প্রতিকার!!![ট্রাবলশুটিং পর্ব-১]

৬. পাওয়ার অন করলে ডিসপ্লে আসার পর কম্পিটার hang হয়ে যায়।


  • কম্পিউটারের পাওয়ার অফ করুন এবং কেসিংয়ের এক পার্শ খুলে হার্ডডিস্ক, সিডিরম কিংবা ডিভিডি এর সাথে সংযুক্ত ডাটা ক্যাবলসমূহ সাবধানে খুলে ফেলুন এবং এগুলো পর্যায়ক্রমে স্ব স্ব স্থানে যথাযথভাবে সংযোগ দিয়ে পুনরায় কম্পিউটার চালু করে দেখুন। যদি সমস্য থেকে যায় তাহলে-
  • মাদারবোর্ড থেকে Ram, Processor, Power Supply connection প্রত্যকটি আলাদাভাবে চেক করে দেখতে হবে কোনো প্রকার ত্রুটি কিংবা ক্যাবল কানেকশনের সংযোগস্থলে লুজ আছে কিনা? এরপরও যদি একই সমস্যা থাকে তাহলে-
  • অন্য একটি ভালো কম্পিউটার থেকে প্রসেসর, র‍্যাম, হার্ডডিস্ক এবং অন্যান্য আনুষাঙ্গিক যন্ত্রপাতি এই মাদারবোর্ডে ব্যবহার করে পরীক্ষা করে দেখতে হবে মাদারবোর্ডটি থিক আছে কি না। যদি ঠিক না থাকে তাহলে মাদারবোর্ড বদলিয়ে ফেলতে হবে। কাজটি সার্ভিস সেন্টারে নিয়ে অভিজ্ঞ কাউকে দিয়ে করাতে হবে।
  • নোটঃ অনেক সময় কেসিংয়ের পিছনে মাদারবোর্ডটির কীবোর্ড এবং মাউস পোর্টের সংযোগ লুজ থাকলেও এ ধরণের সমস্যা দেখা দিতে পারে। সেক্ষেত্রে যথাযথভাবে সংযোগ দিতে হবে।

৭. কম্পিউটার ঘন ঘন হ্যাং করে বা রিবুট/রিস্টার্ট হয়ে যায়।

  • কম্পিউটারে প্রসেসরের ওপর সংযুক্ত কুলিং ফ্যানটি না ঘুরলে কিংবা পর্যাপ্ত ঠান্ডা করতে না পারলে এ ধরণের সমস্যা হতে পারে। সেক্ষেত্রে কম্পিউটারের পাওয়ার অফ করে কেসিং খুলে কুলিং ফ্যানটিকে ভালোভাবে চেক করে প্রয়োজনে নতুন কুলিং ফ্যান স্থাপন করে নিন। এছাড়াও কম্পিউটার চলাকালীন সময়ে আপনার সিপিইউ-এর পিছনের কেসিং-এর ফ্যানটি ঘুরে কিনা তাও চেক করতে হবে।
  • কম্পিউটারে ভাইরাস থাকলেও এই ধরণের সমস্যা হতে পারে। তাই আপগ্রেড এন্টিভাইরাস দ্বারা আপনার হার্ডডিস্ক ড্রাইভের প্রতিটি ড্রাইভ ক্লিন করে নিতে হবে। এছাড়া অনেক সময় নতুন প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার লোড করার কারণেও এটি হতে পারে। সেক্ষেত্রে প্রোগ্রামটি আনইনস্টল করে দেখতে পারেন।

৮. কম্পিউটারের মেটাল অংশে স্পর্শ বা হাত লাগলে শক করে।

  • কম্পিউটারের গায়ে তথা মেটাল অংশে স্পর্শ করলে যদি শক করে তাহলে বুঝতে হবে কম্পিউটারটি আর্থিং করা নেই। সেক্ষেত্রে যথাযথভাবে আর্থিং করতে হবে। কিভাবে করবেন সে বিষয়ে পরবর্তিতে বিস্তারিত ব্যাখ্যা করে পোষ্ট করবো ইনশাহআল্লাহ

৯. কম্পিউটারের তারিখ এবং সময় ঠিক থাকে না। অথবা বায়োসের কোনো অপ্সহন পরিবর্তন করলে তা সেইভ হয় না।


  • মাদারবোর্ডে সংযুক্ত CMOS (Complementary Metal-Oxide Semiconductor) এর ব্যাটারিটি কার্যক্ষমতা হারালে এটি ঘটে। এক্ষেত্রে একটি নতুন অনুরুপ ব্যাটারি মাদারবোর্ডে লাগিয়ে নিতে হবে।

১০. Boot disk failure or Hard disk not found মেসেজ দেখায়।


  • কম্পিউটারের পাওয়ার বন্ধ করে কেসিং খুলে মাদারবোর্ড এবং হার্ডডিস্ক ড্রাইভের সাথে সংযুক্ত ডেটা ক্যাবল এবং পাওয়ার সাপ্লাই ইউনিট থেকে হার্ডডিস্কে সংযুক্ত পাওয়ার ক্যাবলটির সংযোগস্থলে কোনো লুজ আছে কি না তা প্রত্যক্ষ করে সঠিকভাবে কানেক্ট করে নিতে হবে।
  • হার্ডডিস্কের পিছনের জাম্পার সেটিং ডায়াগ্রাম অনুসরণ করে ড্রাইভটির জাম্পার সেটিং ঠিক আছে কিনা তা দেখে সঠিকভাবে জাম্পার সেটিং করতে হবে।

  • কম্পিউটার চালিয়ে বায়োসে প্রবেশ করে হার্ডডিস্ক ডাইভটিকে বায়োসের অপশন থেকে অটো কংবা ম্যানুয়ালি ডিটেক্ট করে কিনা তা দেখুন। যদি সমস্যা সমাধান না হয় তাহলে অন্য একটি ভালো কম্পিউটারে আপনার হার্ডডিস্কটিকে লাগিয়ে দেখুন হার্ডডিস্কটি কাজ করে কিনা। যদি কাজ না করে তাহলে নিশ্চিন্তে অন্য একটি হার্ডডিস্ক ক্রয় করে কম্পিউটারের সাথে লাগিয়ে প্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম ইন্সটল করে ফেলুন। কাজটি অবশ্যই অভিজ্ঞ কাউকে দিয়ে করাতে হবে।

১১. Out of memory or Not enough memory মেসেজ দেখায়।


  • সাধারণত কম্পিউটারে অতিরিক্ত প্রোগ্রাম ইনস্টল করতে গিয়ে কিংবা একাধিক প্রোগ্রাম একসাথে ওপেন করে কাজ করতে গেলে এধরণের মেসেজ প্রদর্শিত হয়।
  • কম্পিউটারে অতিরিক্ত প্রোগ্রাম ইনস্টল করার মতো পর্যাপ্ত মেমোরি না থাকলে এ ধরণের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এ সমস্যা দূর করার জন্য মাদারবোর্ডে অধিক র‍্যাম ব্যবহার করতে হবে।

১২. কীবোর্ড কাজ করছে না।


  • কম্পিউটারটি বন্ধ করে কীবোর্ডটি পোর্টের সাথে যথাযথভাবে সংযোগ করা আছে কিনা সে বিষয়টি লক্ষ করতে হবে।
  • যদি সংযোগ না থাকে কিংবা লুজ থাকে তাহলে ভালোভাবে সংযোগ দিয়ে পুনরায় কম্পিউটার চালু করে দেখতে হবে।
  • এন্টিভাইরাস দ্বারা ক্লিন করে দেখতে হবে।
  • এরপরও যদি কীবোর্ড কাজ না করে তাহলে নতুন কীবোর্ড লাগিয়ে নিতে হবে।

তাহলে বন্ধুরা আজকে এই পর্যন্তই স্থগিত রাখি। আগামী পর্বটিতেই ইনশাহআল্লাহ শেষ করে দেবো এই পোস্টটি। সুতরাং আমি Jo5 আজ এখানেই বিদায় নিচ্ছি। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন, আর অবশ্যই ঘরে থাকুন।

3 months ago (April 9, 2020) 128 Views